ধ্বংস ও বিপর্যয়ের অন্যতম কারণ পাপাচার

وَإِذَا أَرَدْنَا أَن نُّهْلِكَ قَرْيَةً أَمَرْنَا مُتْرَفِيهَا فَفَسَقُوا فِيهَا فَحَقَّ عَلَيْهَا الْقَوْلُ فَدَمَّرْنَاهَا تَدْمِيرًا
“যখন আমি কোন জনপদকে ধ্বংস করার ইচ্ছা করি তখন সেখানকার অবস্থাপন্ন লোকদেরকে নির্দেশ দেই কিন্তু তারা পাপাচারে লিপ্ত হয়ে পড়লে তাদের ব্যাপারে আমার সিদ্ধান্ত অবধারিত হয়ে যায়। অনন্তর আমি তাদেরকে সমূলে ধ্বংস করে দেই।”(সূরা ইসরা: ১৬)
————————
বর্তমানে আমাদের সমাজে প্রচলিত অসংখ্য পাপাচার ও অন্যায় কর্মের মধ্যে অন্যতম হল,
১) শিরক। যেমন, মূর্তিপূজা, মূর্তি সংস্কৃতি, কবর ও মাজার পূজা, পীর বাবাদের নানা ধরণের শিরকী কর্মের মহড়া ইত্যাদি।
২) বিদয়াত। বর্তমানে আমাদের সমাজে অনেক সুন্নত হয়ে গেছে গেছে বিদয়াত আর বিদয়াত হয়ে গেছে সুন্নত!!
৩) নাস্তিকতা ও আল্লাহদ্রোহিতা।
৪) বাক স্বাধীনতা ও মুক্তমনার আড়ালে আল্লাহ, রাসূল, কুরআন, দীন ও দীনের বিধিবিধানকে প্রকাশ্যে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করা ও গালাগালি করা।
৫) ব্যাপক জুলুম-নির্যাতন।
৬) বেহায়াপনা ও জিনা-ব্যভিচারের সয়লাব।
৭) গায়ক, নায়ক, নায়িকা আর বাদ্য যন্ত্রের ছড়াছড়ি।
৮) অন্যায় রক্তপাত।
৯) সরকারী সম্পদ লুটপাট, ঘুষ ও দুর্নীতি।
১০) মিথ্যা কথা ও মিথ্যা সাক্ষ্য।
১১) আল্লাহর বিধানকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে মানব রচিত আইন অনুযায়ী বিচারকার্য পরিচালনা।
১২) সুদ ভিত্তিক অর্থনীতি এবং বিভিন্ন নামে-বেনামে সুদী কারবার।
১৩) অপসংস্কৃতির ব্যাপক আমদানি ও চর্চা।
১৪) চারিত্রিক অধঃপতন এবং চারিত্র ধ্বংসের সকল উপকরণের সহজলভ্যতা।
১৫) সুদ ভিত্তিক অর্থনীতি এবং বিভিন্ন নামে-বেনামে সুদী কারবার।
এ সব দেখে সত্যি আতঙ্কিত হয়ে উঠতে হয় যে, সত্যি কি আমরা মহান আল্লাহর আজাব ও ধ্বংসের দিকে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছি?

হে মহান করুণার আধার, তুমি আমাদের ব্যাপারে তোমার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করার আগে আমাদেরকে তওবা করার সুযোগ দাও। আমাদেরকে সুবুদ্ধি দাও। ক্ষমা করো। আর মুসলিম হওয়ার আগে আমাদেরকে মৃত্যু দিও না। আমীন।
————————-
লেখক: আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স সেন্টার, সৌদি আরব।

Share This Post
Scroll to Top